নিউজ আপডেট
ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাব কাটেনি
পৌনে তিন কোটি গ্রাহক বিদ্যুৎ–বিচ্ছিন্ন
১৯ জেলায় ক্ষতিগ্রস্ত সাড়ে ৩৭ লাখ মানুষ
বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হেনেছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রেমাল
ঝুঁকিতে ৮৪ লাখ মানুষ, নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি
ভারী বৃষ্টি-জোয়ারের পানি, তিনজনের মৃত্যু
কত টাকা পেল কলকাতা
৭১ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে রাজধানীতে,চলতে পারে সারা দিনই
এখনকার শৈশব মোবাইলে সীমাবদ্ধ!
ডাক্তার হতে হলে ১৩/১৪ ঘন্টা মিনিমাম পড়তেই হয়
৯০% হাজী হজ্বের সওয়ার নষ্ট করে ফেলে!
ব্যবসায়ী দম্পতিসহ তিনজনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা
আইজিপি বেনজীর আহমেদের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ
আজিজের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা
ইরানের প্রেসিডেন্টের খোঁজে চলছে ব্যাপক তল্লাশি অভিযান
৩০ জন স্কুলছাত্রকে বিকৃত যৌন নিপীড়ন করেছেন এক শিক্ষক
ইবিতে বিবস্ত্র করে র‍্যাগিং
৪৮ ঘণ্টার হিট অ্যালার্ট জারি
আপনি আমরা কেউ হতাশার ঊর্ধ্বে নয়
মিলছে না টাকা,আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক/ শাখা থেকে শাখায় ঘুরছেন গ্রাহকরা
গণহত্যা চালানোর মধ্যেই ইসরায়েলে শত কোটি ডলারের অস্ত্র পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
১৫৩ রোহিঙ্গার জন্মনিবন্ধন
রিজার্ভ কমে ১৩ বিলিয়ন ডলারের নিচে
কাদের মির্জার বিরুদ্ধে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ
নিহত তানাজ জিপিএ-৫ পেয়েছে, পরিবারে কান্নার রোল
এমপি’র জিহ্বা কাটার হুমকি দিলেন আওয়ামী লীগ নেতা
স্ট্রেচারে পড়ে ছিল মায়ের নিথর দেহ, বুকের ওপর শুয়ে কাঁদছিল দেড় বছরের শিশুটি
বিদেশি ঋণ পরিশোধে চাপে সরকার
জরুরি ব্যবস্থা নিতে আইসিজেতে আবেদন দক্ষিণ আফ্রিকার
ধারাবাহিকতায় আজকের এ-ই চিকিৎসক মিলন মেলা
দৈনিক আয় করতে পারবেন ২ থেকে ৩ হাজার টাকা
প্রভাবশালীর নাতির কাণ্ড
প্রতি কেজি বেগুনের দাম আবারও শতক ছুঁয়েছে
মোমেনের সাবেক স্ত্রী নাসিম পারভীনের লাশ উদ্ধার
আম্মার দোয়ার আমি চোখ এর ডাক্তার
দেশে বেকারের সংখ্যা ২৫ লাখ ৯০ হাজার
স্ত্রীকে ভিডিও কলে রেখে স্বামীর আত্মহত্যা
রেমিট্যান্স নিম্নগতি চাপে রিজার্ভ
রাজধানীতে ৩৬ মিলিমিটার বৃষ্টি, ৫৯ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া
প্রেমিকের কাছ থেকে প্রেমিকাকে ছিনিয়ে নিয়ে ধর্ষণ
বাকৃবিতে ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা শিক্ষক
হামাসের রকেট হামলায় নিহত ৩ ইসরাইলি সেনা
বন্ধের প্রতিবাদে শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ, তীব্র যানজট
২১ ঘণ্টায়ও উদ্ধারকাজ শেষ হয়নি, তদন্ত কমিটি
তিন প্রকল্পে ব্যয় বেড়েছে
বন্ধ নাকি খোলা থাকবে, তা নিয়ে একধরনের বিভ্রান্তি রয়ে গেছে
পূর্ণিমা রানী ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার
দোয়ারাবাজারে ধর্ষণের পর এক কলেজছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা
চুয়াডাঙ্গায় ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড
কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের যথেষ্ট পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে, স্বীকার করে নিলো অ্যাস্ট্রাজেনেকা
জ্বালানি তেলের দাম এক থেকে আড়াই টাকা বাড়লো
আমার সহকারী ১০০ টাকা নিয়েছে,আমি কিছুই নেয়নিঃ ডাঃ তানিম
বেনজীর ও তার পরিবারের সম্পদের তথ্য চেয়ে বাংলাদেশ ব্যাংককে দুদকের চিঠি
উপজেলা নির্বাচন ব্যর্থ হলে গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রা ক্ষুণ্ন হতে পারে: সিইসি
যে কারণে নির্বাচন থেকে সরছেন না মন্ত্রী এমপি’র স্বজনরা
মানুষের জীবন দুর্বিষহ, কমেছে আয়
চার অঞ্চলে বজ্রবৃষ্টির আভাস
শ্যামবাজার ঘাটে লঞ্চে আগুন
ইরান হামলায় জড়িত নয় যুক্তরাষ্ট্র: ব্লিনকেন
অস্ত্রাগার দেখিয়ে ফেসবুকে লাইভ করায় পুলিশ সুপারকে অবসর
১০০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে বাংলাদেশের মাত্র ৩ টি
জানা গেল কীভাবে ব্যাংক লুট করতেন তিনি

দৈনিক আয় করতে পারবেন ২ থেকে ৩ হাজার টাকা

‘ঘরে বসে অনলাইনে প্রতিদিন আয় করতে পারবেন ২ থেকে ৩ হাজার টাকা’- মোবাইল ফোনে মেসেজ দিয়ে, কল করে এভাবেই প্রলোভন দেখিয়ে বিপুল পরিমাণে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র। পুলিশের সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ বলছে- এই চক্রের সঙ্গে অনেক বিদেশি নাগরিকও জড়িত।  তারা বলছেন, আপনার ফোনে হঠাৎ মেসেজ আসলো-‘আপনি ঘরে বসেই অনলাইনের মাধ্যমে প্রতিদিন ইনকাম করতে পারবেন ২ থেকে ৩ হাজার টাকা। রাজি থাকলে নিচের লিংকে যোগাযোগ করুন।’ অথবা আপনার ফোনে মেসেজ আসলো- ‘আপনি চাকরির বাছাই পর্বে উত্তীর্ণ হয়েছেন। বিস্তারিত জানতে নিচের লিংকে প্রবেশ করুন।’ কিন্তু বাস্তবে এমন কোনো চাকরির পরীক্ষাই আপনি দেননি। এমনকি আবেদনও করেননি। এরপরও আপনি সাড়া না দিলে, সরাসরি ফোনে কল দিয়ে নারী কণ্ঠে আপনাকে জানানো হবে-আপনার চাকরি পাওয়ার কথা। ঘরে বসেই বিপুল পরিমাণে টাকা আয়ের প্রলোভন দেয়া হবে আপনাকে। কাজ না জানলেও সমস্যা নেই। কাজ শিখিয়ে নেবে তারা।

আপনি রাজি হলে কয়েকটা লিংক পাঠানো হবে আপনাকে। লিংকগুলোতে প্রবেশ করে কয়েকটি লাইক করলেই আপনাকে ছোট ছোট অঙ্কের টাকাও পরিশোধ করা হবে। নামে মাত্র কাজ করেই টাকা পেয়ে তাদের ফাঁদে পড়ে যাবেন আপনি। আর এভাবেই ধাপে ধাপে আপনার বিশ্বাস জিতে হাতিয়ে নেবে সর্বস্ব।  এমনই এক ভুক্তভোগী মো. শাহজালাল। তার মোবাইল ফোনেও আসে ঘরে বসে টাকা আয়ের মেসেজ। 

শাহজালাল বলেন, প্রথমে আমি মেসেজটি ডিলিট করে দেই। এরপর আবার মেসেজ আসে। সেটাও ডিলিট করে দিলে হোয়াটসঅ্যাপে একই মেসেজ আছে। এরপর ফোনে কল দিয়ে এক নারী নিজেকে একটা কোম্পানির কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বলেন, আপনি একটি চাকরির বাছাই পর্বে উত্তীর্ণ হয়েছেন। শর্ট লিস্টে আছেন। এখন আপনি চাইলেই ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারবেন। তখন আমি তাকে জিজ্ঞেস করি, আমার কি কি করা লাগবে। তখন তিনি বলেন, তেমন কিছুই না। যা যা দরকার আমরা শিখিয়ে নেবো। এরপর আমার হোয়াটসঅ্যাপে কিছু লিংক পাঠিয়ে তাতে প্রবেশ করতে বলেন। লিংকগুলোতে প্রবেশ করে লাইক দিয়ে তাকে স্কিন শট পাঠাতে হবে। তার কথা মতো আমি লিংকগুলোতে প্রবেশ করে লাইক দিয়ে সেগুলোর স্কিন শট নিয়ে তার হোয়াটসঅ্যাপে পাঠিয়ে দেই। সঙ্গে সঙ্গে ২১২ টাকা আমার বিকাশ অ্যাকাউন্টে চলে আসে। তখন আমি তাদের ফেসবুক পেজ ও ওয়েব সাইটের ঠিকানা জানতে চাই। তখন আমাকে একটি ওয়েব সাইটের ঠিকানা দিয়ে বলা হয়, আপনি প্রতিদিন এমন সহজ ৫টি কাজ করেই ২৫শ’ টাকার উপরে আয় করতে পারবেন। লিংকে লাইক দিয়েই যদি টাকা পাওয়া যায় খারাপ কী, তাই আমি রাজি হয়ে যাই। এরপর আবার ৫টি কাজ দেয়া হয়। তাদের ওয়েব সাইটে আমার নামে অ্যাকাইন্ট খুলে দেয়া হয়। 

আমি ওই ৫টি কাজ করার পর অ্যাকাউন্টে সাড়ে ৪ হাজার টাকা জমাও হয়। তাই ধীরে ধীরে আকৃষ্ট হতে থাকি। একে একে আমি ৬ষ্ঠ স্টেজে যাওয়ার পর ৩টি অপশনে আমাকে ইনভেস্ট করতে বলা হয়। এক হাজার টাকা ইনভেস্ট করলে কমিশনসহ ১২শ’ টাকা, ৩ হাজার টাকায় ৩৬শ’ টাকা, আর ৫ হাজার টাকা ইনভেস্ট করলে আমি পাবো ৬ হাজার টাকা। আমি সব থেকে কম ১ হাজার টাকা ইনভেস্ট করি। ১২শ’ টাকাও পাই। এর পর ইনভেস্ট বাড়তে থাকে। এর পরের ধাপে ৪টি অপশনে ৩ হাজার,  ৫ হাজার, ৭ হাজার ও ১০ হাজার টাকা ইনভেস্ট করতে বলা হয়। একইসঙ্গে কোম্পানির গ্রোথ বৃদ্ধির জন্য ছোট ছোট কাজ দেয়া হয় আমাকে। আগের ইনভেস্ট থেকে টাকা পাওয়ায় তেমন একটা সন্দেহ হয় না। তাই আমি ইনভেস্ট করে দেই। এভাবে স্টেজ ২৩-এ গিয়ে ৭ হাজার টাকা ইনভেস্ট করে আমি ৮ হাজার ৪শ’ টাকা কমিশনসহ ফেরত পাই। 

এভাবে অনলাইনে তেমন কোনো কাজ না করেই ঘরে বসে কয়েকদিন টাকা আয় করে মোহে পড়ে যাই আমি। এভাবে ২৪তম স্টেজে গিয়ে একটি ওয়েব সাইটে অনেকে একসঙ্গে একটি টেলিগ্রাম গ্রুপে সকলে মিলে কাজ করতে হয়। সেখানে ইনভেস্ট করতে হয় ১৫ হাজার টাকা। এত টাকা ইনভেস্ট করতে হবে বলে প্রথমে আমার একটু খটকা লাগে। তখন আমি গ্রুপের অন্যান্য মেম্বরদের সঙ্গে পার্সোনালি ইনবক্সে যোগাযোগ করি। তারা আমাকে বলেন, তারা সকলেই অনেক আগে থেকে এই গ্রুপে কাজ করেন। কেউ কেউ এখানে কাজ করে গাড়ি পর্যন্ত কিনে ফেলেছেন। কেউ ১০-১২ লাখ টাকা কামিয়েছেন। এসব কথা শুনে আমি আর লোভ সামলাতে পারিনি। আমি ১৫ হাজার টাকা ইনভেস্ট করে দেই। ওই ওয়েবসাইটে আমার প্রোফাইলে আমি দেখতে পাই মোট ৩৫ হাজার টাকা জমা হয়েছে। বোনাস হিসাবেও কয়েন জমা হয়েছে। সেগুলো সেল করার অপশনও রয়েছে। আমাকে এমনভাবে সবকিছু উপস্থাপন করা হয়, আমি টাকা তোলার কথা চিন্তাও করতে পারিনি। ঘোরের মধ্যে শুধু ইনভেস্ট করে যাচ্ছি। 

এভাবে ৫০ হাজার টাকা ইনভেস্ট করে ফেলি। তখন আমার ওয়ালেট থেকে ওই ইনভেস্ট করা টাকা ও এর বোনাস উত্তোলন করতে গেলে দেখি অ্যাকাউন্ট  লক করা। তখন আমি রিপ্রেজেন্টিটিভের সঙ্গে যোগাযোগ করি। তিনি বলেন, এই টাকা তুলতে গেলে এখন ৭৮ হাজার টাকা আমাকে জমা করতে হবে। ৭৮ হাজার টাকা জমা করলে আমি মুনাফাসহ সকল টাকা একবারে বিকাশের মাধ্যমে উত্তোলন করতে পারবো। তখন আমার সন্দেহ হলে আমি কিছুটা ডিলে করতে থাকি। কিন্তু ওই সাজানো গ্রুপের অন্যান্য মেম্বররা আমাকে সকলে মিলে চাপ দিতে থাকে। বলে, আমরা সকলেই টাকা জমা দিয়ে দিয়েছি। আমার টাকা না জমা করার জন্য তাদের সকলের টাকা আটকে রয়েছে। পুরো নেশার ঘোরে রাখা হয় আমাকে। তখন আমি ভাবি- আমার মতো সকলকেই তো টাকা দিতে হচ্ছে। লস হলে সকলেরই হবে। তাই আমি ওই টাকা ইনভেস্ট করে দেই। এরপর ওই গ্রুপে আমাদের সঙ্গে কথিত দুবাই থেকে ওই কোম্পানির হেড যুক্ত হন। তিনি সকলকে বলেন, এইবারই আপনাদের শেষ ইনভেস্ট। 

এই ধাপ অতিক্রম করলে আপনি আপনার আসলসহ অনেক টাকা লাভ পাবেন। এই ধাপে আপনাকে ইনভেস্ট করতে হবে ১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। এতগুলো ধাপেও যখন আমি টাকা হাতে পাইনি। তখন আমি নতুন করে আর টাকা ইনভেস্ট করতে রাজি হইনি। তখন আমাকে আবারো ওই কথিত বস মেসেজ পাঠিয়ে বলেন, ‘আমি আমার বন্ধুকে বিপদে ফেলতে চাই না। তুমি ইচ্ছা করলেই শেষ ধাপের টাকা ইনভেস্ট করে সকল লাভ উঠিয়ে নিতে পারো।’ আমি তখন তাকে জানাই, আমি একটু ভেবে আপনাকে জানবো। এরপরই আমাকে ওই গ্রুপ থেকে বাদ দিয়ে দেয়া হয়। প্রায় এক লাখ ৩০ হাজার টাকা ইনভেস্ট করে আমাকে একটি টাকাও দেয়া হয় না। তখন আমি প্রথমে যোগাযোগ করা ওই হোয়াটস অ্যাপ প্রোফাইলে গিয়ে ফোন নম্বর বের করার চেষ্টা করি। কিন্তু গুগল ভয়েজ নম্বর বা টেক্স নাউ দিয়ে ভেরিফাই করার জন্য তার ফোন নম্বর পাওয়া যায়নি। 

এরপর তাদের ফেসবুক পেজে দেয়া নম্বরে যোগাযোগ করি। সেটাও বন্ধ। পেজে দেয়া ঠিকানা তাও সঠিক নয়।  ভুক্তভোগী মো. শাহজালাল বলেন, আমি ঘুণাক্ষরেও বুঝতে পারিনি আমার সঙ্গে এভাবে প্রতারণা করা হবে। আমি এসব ভাবারও সময় পাইনি। যেভাবে প্রথমে কয়েক ধাপে টাকা পেয়েছি, তাতে মনেই হয়নি এটি একটি স্ক্যাম। প্রতিটি ধাপেই মনে হয়েছে আমি সঠিক পথে রয়েছি। অনলাইনে টাকা ইনকামের একটি পথ। তাই ধাপে ধাপে আমি ইনভেস্ট করতে থাকি। আর গ্রুপে যাদের সঙ্গে আমি যোগাযোগ করেছিলাম তারও আমাকে এ বিষয়ে সাহস যোগায়। কিন্তু পরে গিয়ে টের পাই এগুলো সবই সাজানো। গ্রুপের মেম্বারও ওই প্রতারণা চক্রের সদস্য। তাই এভাবে আমার মতো কেউ যেন এই ফাঁদে পড়ে সর্বস্ব না হারায় সেজন্য সকলকে এসব অনলাইন প্রতারণা থেকে দূরে থাকতে অনুরোধ করেন তিনি। এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ডিভিশন দক্ষিণের উপ-কমিশনার মো. সাইফুর রহমান আজাদ বলেন, আমরা এই বিষয়টি নিয়ে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছি। আমরা বিদেশিসহ এমন প্রতারণা চক্রের অনেক সদস্যকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনেছি।

 তাদের মধ্যে অনেক বিদেশি সদস্যও রয়েছে। তিনি বলেন, আমরা প্রান্তিক পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে দেখেছি, এদের বেশির ভাগই বিদেশি সদস্য দারা নিয়ন্ত্রিত। দেশের কয়েকজন দালালের মাধ্যমে তারা এই কাজগুলো পরিচালনা করে থাকেন। তাই দেশে থাকা হাতেগোনা কয়েকজন চুনোপুঁটি গ্রেপ্তার হলেও এই চক্রের মূল হোতা ধরাছোঁয়ার বাইরেই থেকে যায়। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, চায়না থেকে আমাদের দেশে আসতে তেমন একটা বিধিনিষেধ নেই। অন এরাইভ্যাল ভিসার মাধ্যমে তারা এদেশে আসতে পারেন। এরই সুযোগে সে দেশের অনেক অসাধু চক্রের সদস্যরা এদেশে এসে একটি চক্র তৈরি করে। যাদের মাধ্যমে সার্ভার তৈরি করে ভুয়া রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে এদেশের সিম কার্ড ব্যবহার করে বিভিন্ন প্রযুক্তির মাধ্যমে মানুষকে প্রলোভনের এসএমএস পাঠায়। অনেকের ফোনে কল দেয়। আর যারা কাজ না করে টাকা আয় করতে চান তারাই এই প্রতারণার ফাঁদে পড়েন। তাই মানুষকে এইসব প্রতারণার ফাঁদে পা না দিয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। একইসঙ্গে অনলাইনে এত সহজে টাকা আয় করা সম্ভব নয় বলেও উল্লেখ করেন পুলিশের সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইমের এই কর্মকর্তা।

Please follow and like us:
0
fb-share-icon20
Tweet 20
Pin Share20

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top

Enjoy this blog? Please spread the word :)

Facebook20
YouTube20
Instagram20
20